সংবাদ

ইন্টেল,গুগল,মাইক্রোসফট,পেপালের ইন্টারভিউতে করা ৫টি মজার প্রশ্ন!

পৃথিবীর বড় বড় কিছু প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানে চাকরির দেয়ার  সময়কালে এমনকিছু প্রশ্ন করা হয় যা খুবই মজার। বড় বড় এবং মানুষের স্বপ্নের এসব প্রতিষ্ঠানে আপনার সিভি নয়,পরখ করা হয় আপনার উপস্থিত জ্ঞান দ্বারা।  এর মাধ্যম হতে পারে দারুন কিছু প্রশ্ন। এমনি ৫ টি প্রশ্ন নিয়ে সাজানো হয়েছে এই লেখা।

তুমি কিভাবে অন্ধদের জন্য একটি মসলার র‍্যাক সাজাবে?

বর্তমানে পৃথিবীর অন্যতম বড় প্রসেসর তথা সেমিকন্ডাক্টর ম্যানুফ্যাকচারিং কোম্পানি  ইন্টেল তাদের চাকরিপ্রার্থীদের এই প্রশ্ন প্রায়ই করে থাকে। আসলেই এই প্রশ্নের কোন নির্দিষ্ট উত্তর নেই, চাকরিদাতারা এই প্রশ্নের মাধ্যমে প্রার্থীর আইকিউ এবং সমস্যা নিরাময় করার দক্ষতা যাচাই করে থাকে। যদিও এর আরও অনেক সম্ভাব্য উত্তর থাকতে পারে, তবে বেশিরভাগ মানুষই দুইটি উত্তর দিয়ে থাকে। প্রথমটি, অন্ধদের সামনাসামনি নিয়ে তাদের নিয়ে জরিপ করে তারপর ভিত্তি করে একটা র‍্যাকের নকশা ডিজাইন করতে হবে। দ্বিতীয়টি হল, এআই ব্যাবহার করে, টাচ ভয়েস কমান্ড, মশলার বোতলের সাইজ ছোটোবড় হিসেবে রেখে। আর এরকম আরও উত্তর এর ভেতর থেকে চাকরিদাতারা বুঝে যায় যে, প্রার্থী সমাধান প্রদানের জন্য কতোটা আগ্রহী।

আপনি যতদিন বেচে থাকবেন, কেবল একটি রুমেই থাকবেন। আর সেই রুমে সারাক্ষন বাজানোর জন্য আপনাকে একটি গান বাছাই করতে হবে। আপনি কোন গান বাছাই করবেন?

আর এই রকম আজব প্রশ্ন করার জন্য  জনপ্রিয় গুগলকে কুখ্যাত বলা হয়। আর গুগল এর তার চাকরি প্রার্থীদের করা আজব প্রশ্নগুলোর মধ্যে এটি একটি। যদিও এই প্রশ্ন আপনার কাছে অনেক সহজ আর স্বাভাবিক মনে হতে পারে, তবে একে গুরুত্ব সহকারে না নেয়ার কোন কারন নেই। যতটা জীবন বেচে থাকবেন ততদিন আপনার রুমে একটি গান বাজবে, আর এমন গান বেছে নেয়া নিশ্চয়ই অনেক কঠিন একটি ব্যাপার। আর এই প্রশ্ন থেকে প্রশ্নকর্তা আপনার রুচি সম্পর্কে খুব সহজেই ধারনা লাভ করে; এখান থেকে প্রশ্নকর্তা আপনার চিন্তাশক্তি সম্পর্কেও ধারনা লাভ করে। অনেকে মাথায় থাকা প্রথম গানের নামটাই খুব তাড়াতাড়ি বলে দেয়, আর এ থেকে বিচারকর্তার মনে একটি নেতিবাচক মতামত তৈরি হয়। কারন আপনার সাময়িক খুব ভাললাগার গান আগামি ৩০-৪৫ বছর ভাল লাগবে কিনা সে বিসয়েও প্রশ্ন থেকেই যায়। আবার এই উত্তর দেয়ার সময় আপনার আসে পাশে কারা আছে তাদের কথাও ভাবতে হবে। নিশ্চয় এমন গান বাছাই করবেন না যা আপনার আশেপাশের মানুষদের আপনার সম্পর্কে খুব খারাপ একটি মনোভাব তৈরি করে দেবে। সুতরাং একটি গান বাছাইয়ের ভুল আপনার সারাজীবনের স্বপ্নের চাকরির জন্যে কাল হতে পারে।

একটি শহর বেছে নিয়ে, সেই  শহরে কজন পিয়ানো বাদক আছে বলুন?

উদ্ভট এই প্রশ্নটিও একবার গুগলের ওয়েব ডেভেলপার বাছাই এর সময় করা হয়েছিলো। এই প্রশ্ন অপ্রাসঙ্গিক হলেও এর মাধ্যমে প্রার্থীর যুক্তি প্রদর্শনের ক্ষমতা এবং ঠাণ্ডা মাথায় চাপ সামলানোর গুনাগুণটা পরখ করে নেয়া যায়। আর একজন এই উত্তর খুঁজতে শহরের জনসংখ্যার অপর কি কি সমীক্ষা চালাতে পারেন, সেই ব্যাপারটি দেখে গুগল প্রার্থীর মেধা যাচাই করতে পারে।

২ টির ভেতর একটি সুপার পাওয়ার বেছে নিতে বলা হলে কোনটি বেছে নিবেন? অদৃশ্য হওয়া নাকি সুপারম্যানের মত উড়তে পারা?

আর দারুন এই মজার প্রশ্নটি তাদের চাকরি প্রার্থীকে জিজ্ঞেস করেছিল মাইক্রোসফট। প্রশ্নটা অনেকটা হাস্যকর মনে হলেও আপনার সম্পর্কে প্রশ্নকর্তাকে জানতে এই প্রশ্নের ক্ষেত্রে আপনার উত্তর তাতে সহযোগিতা করবে। মানুষের ভেতর মেশা, আপনার কথা বলার ধরন, আপনার ব্যাখা করার ধরন বা মানুষকে কোন কিছু বোঝানোর ধরন এই  প্রশ্নের মাধ্যমে প্রশ্নকর্তা তা বুঝতে পারবেন। যারা অদৃশ্য হয়ে থাকতে চায় তাদের সম্পর্কে নিয়োগদাতাদের একটি নেতিবাচক চিন্তা তৈরি হবে। তারা ভাববে আপনার ভেতর মনোবল অনেক কম । তারা অন্নদের নিয়ন্ত্রণ করতে পারে না এবং পাবলিক প্লেসে কথা বলতেও অক্ষম। আর যারা সুপারম্যানের উড়তে পারার ক্ষমতা নিতে চায়, তাদের সম্পর্কে নিয়োগদাতাদের আগ্রহ তৈরি হয় এবং তাদের মনোবল যে অনেক শক্ত সে বিসয়ে নিয়োগদাতারা স্পষ্ট ধারনা লাভ করে। তারা যে সবার ভেতর কথা বলতে এবং সবাইকে কোন কিছু বোঝাতে সক্ষম সেটিও বুঝতে পারে।

এমন কিছু বলুন যা সত্যি কিন্তু কেউ বিশ্বাস করে না

এই মজার প্রশ্নটি করা অর্থ লেনদেন ভিত্তিক পৃথিবীর অন্যতম বৃহৎ কোম্পানি পেপালে চাকরিপ্রার্থীর আবেদনের সময়। পেপাল প্রতিষ্ঠাতা বলেন তারা এমন সব করমি খুঁজছেন যারা মন থেকে কথা বলতে ভয় পায় না। পেপাল প্রতিষ্ঠাতাকে এই প্রশ্ন কেনো প্রিয় বলা হলে তিনি বলেন, এটা প্রার্থীর চিন্তার মৌলিকতা এবং গভীরতা বুঝতে সহযোগিতা করে থাকে। আপনাকে এই প্রশ্ন করা হলে একদম মন থেকে সাহসী উত্তর করবেন, তবে কোনভাবেই তা সাম্প্রদায়িকতা বিরোধী, বর্ণবাদ, সমকামিতা এগুলোর সাথে যায় এমন হওয়া যাবে না। এসব প্রশ্নের উত্তর নিশ্চয়ই এমন হবে যা ডাটা ব্যবহার করে ব্যাখ্যা করা যাবে না; এবং প্রশ্নকর্তা যেন আপনার উত্তরের মাধ্যমে আপনার স্মার্টনেসকেও বুঝে নিতে পারে।

 

Click to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Most Popular

ফন্ডঅফটেক একটি বাংলাদেশ ভিত্তিক টেকনোক্র্যাট নিউজ পোর্টাল। আমরা এই প্ল্যাটফর্মে বিজ্ঞান এবং প্রযুক্তি ভিত্তিক মানসম্মত কনটেন্ট প্রকাশ নিয়মিত প্রকাশ করার চেষ্টা করে থাকি।

আমাদের স্লোগান, 'প্রযুক্তি সংবাদ, যেটা মূল্য রাখে।'

To Top