চায়নার সামাজিক মাধ্যম উইবো’র ৫৩৮ মিলিয়ন ব্যবহারকারীর তথ্য ডার্কওয়েবে বিক্রি করছে হ্যাকাররা!

চায়নার সামাজিক মাধ্যম উইবো'র ৫৩৮ মিলিয়ন ব্যবহারকারীর তথ্য ডার্কওয়েবে বিক্রি করছে হ্যাকাররা!
চায়নার সামাজিক মাধ্যম উইবো'র ৫৩৮ মিলিয়ন ব্যবহারকারীর তথ্য ডার্কওয়েবে বিক্রি করছে হ্যাকাররা!

হ্যাকাররা দাবি করেছে যে, তারা ৫৩৮ মিলিয়ন ব্যবহারকারীর এর ভেতর কেবল ১৭২ মিলিয়ন ব্যবহারকারীর ব্যাক্তিগত মোবাইল নম্বর উদ্ধার করতে পেরেছে।


ভালো তথ্য হচ্ছে যে, হ্যাকাররা অ্যাকাউন্টগুলোর পাসওয়ার্ড উদ্ধার করতে পারেনি।


তথ্য বর্তমান পৃথিবীর সবচাইয়ে দামি এবং বিধ্বংসী একটি সম্পদ। মানুষ এখন ব্যক্তিগত তথ্য বিক্রি করে বহু টাকা আয় করার ক্ষমতা রাখে। সম্প্রতি জেডিনেট এর একটি রিপোর্ট প্রকাশ পেয়েছে যেখানে বলা হচ্ছে যে, হ্যাকাররা চায়নার জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম উইবো এর ৫৩৮ মিলিয়ন ব্যবহারকারীর তথ্য ডার্ক ওয়েবে বিক্রয় করে দিচ্ছে।

তারা প্রতিজনের কাছে এইসব বিক্রি করছে বাংলাদেশি টাকায় প্রায় ২১হাজার টাকার সমপরিমাণ মূল্যে।

অনেক অনুসন্ধান থেকে ধারনা করা হচ্ছে হ্যাকারদের কাছে জনপ্রিয় এই সামাজিক মাধ্যম এর ব্যবহারকারীদের প্রায় অনেক স্পর্শকাতর তথ্য রয়েছে। হ্যাকাররা ডার্কওয়েবে নানা জায়গায় বিজ্ঞাপন দিচ্ছে। তারা দাবি করছে তাদের কাছে উইবো এর ৫৩৮ মিলিয়ন ব্যবহারকারীর ডাটা রয়েছে। তারা এটিও প্রচার করছে তারা উইবো এর এসকিউএল ডাটাবেজ হ্যাক করেছে, যা থেকে তারা এই তথ্য গুলো পেতে সক্ষম হয়েছে। তারা প্রতিজনের কাছে এইসব বিক্রি করছে বাংলাদেশি টাকায় প্রায় ২১হাজার টাকার সমপরিমাণ মূল্যে।

চুরি করা এই ডাটাবেজ এর ভেতর ব্যাবহারকারীদের আসল নাম, লিঙ্গ, ঠিকানা এবং মোবাইল নম্বরএর মত ব্যাক্তিগত তথ্য রয়েছে। তবে হ্যাকাররা দাবি করেছে যে, তারা ৫৩৮ মিলিয়ন ব্যবহারকারীর এর ভেতর কেবল ১৭২ মিলিয়ন ব্যবহারকারীর ব্যাক্তিগত মোবাইল নম্বর উদ্ধার করতে পেরেছে। তবে একটি ভালো তথ্য হচ্ছে যে, হ্যাকাররা অ্যাকাউন্টগুলোর পাসওয়ার্ড উদ্ধার করতে পারেনি।

তবে ঘটনার পর চায়নার সামাজিক মাধ্যম উইবো এর কথায় অনেক অসামঞ্জস্যতা লক্ষ্য করা গিয়েছে। তারা ব্যাপারটি ঢাকার চেষ্টা করছে। উইবো বলছে এখানে যারা তথ্য হ্যাক করেছে বলে দাবি করছে, তারা আমদের এপিআই থেকে তথ্যগুলো পেয়েছে। তবে হ্যাকাররা বলছে তারা কোন এপিআই থেকে নয়, বরং তারা সরাসরি ডাটাবেজ হ্যাক করেছে।

আবার হ্যাকারদের কাছে ব্যবহারকারীদের ঠিকানার মত তথ্য রয়েছে, যা এপিআই থেকে পাওয়া সম্ভব নয়। এই তথ্যগুলো উইবোতে লুকানো তথা প্রাইভেট অবস্থায় থাকে।