হুয়াওয়ে পি৪০ প্রো প্লাস : ১০x অপটিক্যাল জুম, ফাস্টেস্ট ওয়ারলেস চার্জিং, সিরামিক বডি…

দুটি কালারে পাওয়া যাবে সিরামিক বডি সমৃদ্ধ 'পি৪০ প্রো প্লাস'
দুটি কালারে পাওয়া যাবে সিরামিক বডি সমৃদ্ধ 'পি৪০ প্রো প্লাস'

বিগত কয়েক মাসের অনেক জল্পনা কল্পনা এবং নানা রকম রিউমর তথ্য এর পর; অবশেষে হুয়াওয়ে উন্মচন করল মানুষের অন্যতম কাঙ্ক্ষিত হুয়াওয়ে পি৪০ লাইনআপ এর নতুন স্মার্টফোন। ২০২০ সালে সরপ্রথম হুয়াওয়ে এই পি৪০ লাইনআপে যে স্মার্টফোনটি আনল, তার নাম হচ্ছে হুয়াওয়ে পি৪০ প্রো প্লাস। নতুন এই হুয়াওয়ে পি৪০ প্রো প্লাস, বর্তমানে হুয়াওয়ে এর যতগুলো স্মার্টফোন রয়েছে তার ভেতর সবচেয়ে উন্নত ক্যামেরা কনফিগারেশন সমৃদ্ধ স্মার্টফোন। ব্যবহারকারিরা এই ক্যামেরা কনফিগারেসনে পাবে ‘আর-অয়াই-অয়াই-বি’ প্রযুক্তি এবং পেরিস্কোপ ক্যামেরা সেটাপ। প্রি৮০ প্রো প্লাসে কিছু অতিরিক্ত ফিচার পাওয়া যাবে যা একে পি৪০ প্রো মডেল এর চাইতে একটু আলাদা রাখবে।

হুয়াওয়ে পি৪০ স্মার্টফোন পাওয়া যাবে ৫টি কালারে
হুয়াওয়ে পি৪০ স্মার্টফোন পাওয়া যাবে ৫টি কালারে
  হুয়াওয়ে পি৪০ প্রো  হুয়াওয়ে পি৪০ প্রো প্লাস 
প্রসেসর  কিরিন ৯৯০ ৫জি  কিরিন ৯৯০ ৫জি 
র‍্যাম ও স্টোরেজ  ৮জিবি; ১২৮/২৫৬/৫১২ জিবি ৮ জিবি; ২৫৬/৫১২ জিবি
ব্যাটারি  ৪২০০ এমএএইচ (লিপো) ৪২০০এমএএইচ (লিপো)
ক্যামেরা  ৫০ মেগাপিক্সেল (কুয়াড ক্যামেরা) ৫০ মেগাপিক্সেল (পেন্টা ক্যামেরা)
ডিসপ্লে  অলেড অলেড
নেটওয়ার্ক  ২জি/৩জি/৪জি/৫জি ২জি/৩জি/৪জি/৫জি 
দাম  ৯৩,০০০ (৮/২৫৬) ১,৩০,০০০ (৮/৫১২) 

হুয়াওয়ে পি৪০ প্রো এবং পি৪০ প্রো প্লাসঃ ডিজাইন 

দুটি মডেলই প্রায় একই ডিজাইনে পাবেন। দুটো ডিভাইসেই থাকছে কার্ভড স্ক্রিন এবং পেছনে আয়তাকার ক্যামেরা হাউজিং। পি৪০ প্রো ডিভাইসটি এর আগের প্রিডিসেসরের মতই পাঁচটি  কালার স্ক্রিমে বাজারে পাওয়া যাবে।   

হুয়াওয়ে পি৪০
হুয়াওয়ে পি৪০ প্রো

একই ভাবে পি৪০ প্রো প্লাস এর কাঠামোগত ডিজাইন একই। তবে হুয়াওয়ে পি৪০ প্রো প্লাস এর টেক্সচার এবং বিল্ড ম্যাটেরিয়াল কিছুটা ভিন্ন। বলতে গেলে হুয়াওয়ে পি৪০ প্রো প্লাসকে বলতে হবে বর্তমান সময়ের বাজারের সবচেয়ে সুন্দর স্মার্টফোন। পি৪অ প্রো প্লাস ডিভাইসটিতে আপনি পাবেন একদম খাঁটি সিরামিক বডি। আর সিরামিক বডির তৈরি এই স্মার্টফোন বাজারে পাওয়া যাবে কেবল দুটি কালার স্কিমে; আর সেগুলো হল, সিরামিক ব্ল্যাক এবং সিরামিক হোয়াইট। 

দুটি কালারে পাওয়া যাবে সিরামিক বডি সমৃদ্ধ 'পি৪০ প্রো প্লাস'
দুটি কালারে পাওয়া যাবে সিরামিক বডি সমৃদ্ধ ‘পি৪০ প্রো প্লাস’

পি৪০ প্রো প্লাস এর বডি এর ব্যাপারে হয়াওয়ে যা জানিয়েছে তা হল, তারা ন্যানোটেক প্রযুক্তিতে সিরামিক পাউডারকে কমপ্রেস করেছে, অতঃপর তা প্রায় ১৫০০ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রায় ৫ দিন ব্যাপি চুল্লীতে গরম করেছে। আর তা থেকে তারা যে সিরামিকটি পেয়েছে, তার আলোক প্রতিসরাঙ্ক ডায়মন্ড তথা হিরার কাছাকাছি এবং দৃঢ়তা সাপফায়ার স্টোন তথা নীলকান্তমনি পাথরের মত। সুতরাং প্রিমিয়ামনেস এবং ভাঙা- স্ক্র্যাচ পড়ার দিক দিয়ে পি৪০ প্রো প্লাস এর বডি যে কতোটা উন্নত তা আমরা ধারনা করতেই পাচ্ছেন।  

পি৪০ প্রো প্লাস ডিভাইস থাকছে ৫টি ক্যামেরা নিয়ে খুবই শক্তিশালী ক্যামেরা সেটাপ। অন্যদিকে পি৪০ প্রো’তে পাওয়া যাবে কেবল ৪ টি ক্যামেরা নিয়ে গঠিত ক্যামেরা সেটাপ। পি সিরিজ লাইনআপে এই প্রথম স্মার্টফোন যেখানে ৫ টি ক্যামেরা দেখা যাচ্ছে, তাও আবার সাজানো থাকবে সুন্দর একটি আয়তাকার হাউজিংএ।  

পি৪০ প্রো এবং পি৪০ প্রো প্লাস দুটি ডিভাইস আইপি৬৮ রেটেড। যার ফলে ডিভাইস দুটিয় ধুলাবালি এবং পানি প্রতিরোধক। 

হুয়াওয়ে পি৪০ প্রো এবং পি৪০ প্রো প্লাসঃ ডিসপ্লে 

হুয়াওয়ে পি৪০ প্রো তে ঠিক যে ডিসপ্লে রয়েছে, পি৪০ প্রো প্লাসেও ঠিক একই ডিসপ্লে পাওয়া যাবে। ফোন দুটিতে পাওয়া যাবে ৬.৫৮ ইঞ্চি ১৯ঃ৮ঃ৯ রেসিও সম্পন্ন ২৬৪০x১২০০ রেজুলেসনের ৪৪১ পিপিআই সমৃদ্ধ ডিসপ্লে। আরেকটি অবাক করার মত ব্যাপার হচ্ছে এই দুটি ফোনেই আপনি পাবেন ৯০হার্জ স্ক্রিন ফ্রেস রেট।  

গ্লাসে যখন পানি পূর্ণ হয়ে যায়, তখন গ্লাসের অপরে পানি একটু উচু হয়ে থাকে না? হুয়াওয়ে ওই বিসয়টি থেকে অনুপ্রাণিত হয়ে পি৪০ প্রো এবং পি৪০ প্রো প্লাস এর ডিসপ্লেকে বলছে ‘অভার ফ্লো’ ডিসপ্লে। আর ডিসপ্লেটির পাশ দিয়ে বেজেল পাওয়া যাবে মাত্র ১.৭ মিলিমিটার। 

পি৪০ প্রো এবং পি৪০ প্রো প্লাস এই ফ্রন্ট প্যানেলে আপনি দেখতে পারবেন ডিসপ্লে এর উপরে বাম পাশে দুটি পাঞ্চ হোল ক্যামেরা ছিদ্র। যার ভেতর আপনি পাবেন একটি ৩২ মেগাপিক্সেল অটোফোকাস ক্যামেরা এবং একটি আইআর ক্যামেরা ফেস আনলকিং এর জন্য। আইআর ক্যামেরা থাকার ফলে  অন্ধকার থাকলেও আপনার ফেস আনলকিং এর একুরিসি এবং সিকিউরিটি হবে একদম সুনিশ্চিত। 

অন স্ক্রিন ফিঙ্গারপ্রিন্ট এর দিক দিয়েও হুয়াওয়ে এই দুটি ডিভাইসকে অনেকটা উন্নত করেছে। কেননা এতে আগের পি৪০ এর চেয়ে ৩০% বেশি ফিঙ্গার প্রিন্ট স্ক্যানিং স্পেস দেয়া হয়েছে, আর যার ফলে রিডিং স্পিডও হবে ৩০% বেশি ফাস্ট। 

হুয়াওয়ে পি৪০ প্রো এবং পি৪০ প্রো প্লাসঃ ক্যামেরা 

পি৪০ প্রো এবং পি৪০ প্রো প্লাস এর ভেতর সবচেয়ে বড় পার্থক্য তা হল এর ক্যামেরা সেকশনে। পি৪০ প্রো তে পাওয়া যাবে কুয়াড ক্যামেরা তথা ৪ টি ক্যামেরার সেটআপ আর পি৪০ প্রো প্লাসে পাওয়া যাবে পেন্টা ক্যামেরা তথা ৫টি ক্যামেরার সেটআপ। পি৪০ প্রো প্লাসে অতিরিক্ত যে সুবিধাটি পাওয়া যাবে তা হল সুপার পেরিস্কোপ টেলিফটো সেন্সর। আর এই সুপার পেরিস্কোপ টেলিফটো সেন্সর ১০এক্স অপ্টিকাল জুম এবং ১০০এক্স ডিজিটাল জুম করতে সক্ষম। 

পেন্টা ক্যামেরা সেটআপ নিয়ে হুয়াওয়ে পি৪০ প্রো প্লাস
পেন্টা ক্যামেরা সেটআপ নিয়ে হুয়াওয়ে পি৪০ প্রো প্লাস

পি৪০ প্রো প্লাসের ক্যামেরায় যা যা পাবেনঃ 

  • একটি ৪০ মেগাপিক্সেল এফ/১.৮ আলট্রা ওয়াইড সিনে লেন্স
  • একটি ৫০ মেগাপিক্সেল আর-ওয়াই-ওয়াই-বি এফ/১.৯ সেন্সর, সাথে ওআইএস
  • একটি ৮ মেগাপিক্সেল এফ/২.৪ অপটিকাল সুপার পেরিস্কোপ টেলিফটো ক্যামেরা সাথে ওআইএস
  • ৮ মেগাপিক্সেল অপ্টিকাল পেরিস্কোপ ক্যামেরা  সাথে ওআইএস
  •  টিওএফ ডেপথ সেন্সর 
  • কালার টেম্পারেচার ফ্ল্যাশ

এই লাইনআপে ক্যামেরা সেকশনে সবচেয়ে বড় আপগ্রেড হচ্ছে যে এর সুপার পেরিস্কোপ ক্যামেরা। যা হুয়াওয়ে পি৪০ প্রো প্লাস কে পৃথিবীর সবচেয়ে বেশি অপ্টিকাল জুম ক্ষমতা সম্পন্ন ক্যামেরায় পরিনত করেছে। 

তারা তাদের সেটআপে আর-ওয়াই-ওয়াই-বি সেন্সর ব্যবহার করেছে। তাদের দাবি আর-ওয়াই-ওয়াই-বি সেন্সর তুলনামূলকভাবে আলো প্রবেশ এর পরিমান অনেকাংশে বাড়িয়ে দেয় জুম করার ছবির ভেতর, যার ফলে জুম করলেও অনেক ভালো মানের ছবি পাওয়া যায়। 

হুয়াওয়ে পি৪০ প্রো এবং পি৪০ প্রো প্লাসঃ হার্ডওয়্যার

হুয়াওয়ে পি৪০ প্রো এবং পি৪০ প্রো প্লাস ডিভাইস দুটিকেই শক্তি দিবে কিরিন ৯৯০ ৫জি প্রসেসর। এই কিরিন ৯৯০ প্রসেসরটি পারফর্মেন্স এবং পাওয়ার এফিসেইন্সি এর দিক দিয়ে অনেক বেশি উন্নত। দুটি মডেলই এসএ/এনএসএ ৫জি নেটওয়ার্ক সাপোর্ট করবে। স্মার্টফোনটিকে ঠাণ্ডা রাখার জন্য এর ভেতরে দেয়া হয়েছে ৪লেয়ার ভিসি লিকুইড কুলিং সিস্টেম। অনেক লোড থাকা সত্তেও এই কুলিং সিস্টেম স্মার্টফোনকে ঠান্ডারাখার চেস্টা করবে। 

ফোন দুটি ওয়াইফাই ৬ সাপোর্ট করবে, যার ফলে এটি প্রায় ২৬০০ এমবিপিএসে ওয়াইফাই মারফতে ফাইল ট্রান্সফার করতে সক্ষম হবে। এন্ড্রয়েড ১০ এর সাথে এটি আসবে কাস্টম ওএস এমইউআই ১০.১ এর সাথে। এই মডেল গুলোতে কোন গুগল সার্ভিস থাকবে না। গুগল সার্ভিস এর বদলে হুয়াওয়ে এতে হুয়াওয়ে মোবাইল সার্ভিস যুক্ত করে দিয়ে দিয়েছে। যার ভেতর আপনি প্লে স্টোর এর বদলে পাবেন হুয়াওয়ে অ্যাপগ্যালারি। ফোনটি  ডুয়াল সিম সাপোর্ট করবে। তবে মেমরি কার্ড ব্যবহার করলে একটি সিম ব্যবহার করতে পারবেন।